Donate
News

নারী আয় করলে পরিবার ও সমাজে মর্যাদা বৃদ্ধি পায়

নারী আয়  করলে পরিবার ও সমাজে মর্যাদা বৃদ্ধি পায়

‘‘নারীকে আয়মূলক কর্মে প্রবেশ করতে হবে এবং নারীকে পুরুষের পাশাপশি সামনে এগিয়ে যেতে হবে। নারী আয় করলে পরিবার ও সমাজে তাদের মর্যাদা ও সম্মান বৃদ্ধি পায়।’’ উপরোক্ত মন্তব্য করেন ফেয়ার আয়োজিত ৭ দিন ব্যাপি পরিবেশবান্ধব হস্তশিল্পের ওপর প্রশিক্ষণের সমাপনি ও উপকরণ বিতরণ অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি কুষ্টিয়া সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব জবায়ের হোসেন চৌধুরী।

fair helping people organization bangladesh

প্রধান অতিথি কুষ্টিয়া সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব জবায়ের হোসেন চৌধুরী।

 

ফেয়ার এর চেয়ারম্যান সামসুন নাহার সিমুর সভাপত্বিতে অনুষ্ঠিত সমাপনি অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও  ফেয়ার এর উপদেষ্টা সাহাবুব আলী, অর্থসচিব আক্তারী সুলতানা, মিজান হ্যান্ডিক্রাফ্ট, খুলনা এর সত্বাধিকারি মিজানুর রহমান এবং প্রশিক্ষক জয়নব বেগম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ফেয়ার এর পরিচালক দেওয়ান আখতারুজ্জামান।

উল্লেখ যে, প্রান্তিক নারীকে অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী ও ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে বাংলাদেশ এনজিও ফাউন্ডেশন এর আর্থিক সহায়তায় ফেয়ার কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে। এই কর্মসূচির অধিনে ৩০ জন নারীকে ৭ দিন ব্যাপি পরিবেশবান্ধব হস্তশিল্প বিশেষ করে বহুমূখী পাটপণ্য উৎপাদনের দক্ষতা বৃদ্ধিতে প্রশিক্ষণের আয়োজন করা হয়। প্রশিক্ষণ গত ৮ নভেম্বও ২০১৮ শুরু হয়ে ১৪ নভেম্বর ২০১৮ শেষ। এই সাত দিনে প্রশিক্ষার্থীরা পাটের দড়ি ও বেনি  তৈরি এবং দড়ি ও বেনি দিয়ে নানা ধরনের লেডিস ও মোবাইল ব্যাগ, সিকা, ওয়ালম্যাট, টেবিলম্যাট, পাপোস ইত্যাদি হাতে-কলমে তৈরির প্রশিক্ষণ পায়। অনুষ্ঠান শেষে প্রশিক্ষাণাথীদের উপকরণ হিসেবে পাট, সুতা, দড়ি, বেতের হাতলসহ অন্যান্য উপকরণ বিতরণ করা হয়। সার্বিক সহায়তায় ছিলেন ফেয়ার কর্তকর্তা কেএম হারিসুল আলম জনি, বেলাল আহমেদ ও সাগর ইসলাম।

fair ngo kushtia helping people women

প্রশিক্ষাথীবৃন্দ

0 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.